Recent Comments

    ব্রেকিং নিউজ

    চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আজ সকালে বমি করেছেন,কিছুই খেতে পারছেন না:মির্জা ফখরুল || রাজধানী ঢাকার কোনো রুটেই সু-প্রভাত বাস চলবে না: মেয়র আতিকুল ইসলাম || আবরার আহাম্মেদকে চাপা দেয়া বাসটির রেজিস্ট্রেশন বাতিল করেছে বিআরটিএ || নিউজিল্যান্ডের মুসল্লিদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর প্রথম সংসদীয় অধিবেশন শুরু করা হয়েছে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে। || দক্ষিণ আফ্রিকায় জাকের হোসেন নামের এক বাংলাদেশিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা || কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আবেদন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন সাবেক ছাএ নেতা সামসুল আলম || বিএনপি থেকে পদত্যাগ করে চেয়ারম্যান পদে ফিরোজ হায়দার || সিমেন্টের বদলে বালি আর রডের বদলে বাঁশ দিবেন না: গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ || তাঁতী দলের উদ্যোগে আব্দুল আলী মৃধার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল ও স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠিত হবে || অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছে কিনা জানতে চেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ||

    পিরোজপুর জেলায় শিক্ষা অধিদপ্তরের জায়গা দখল ও বিক্রয়, আদালত অবমাননা, জেলা প্রশাসন নিরব !

    March 12, 2019

    pnbd24:-পিরোজপুর থেকে আলামিনঃ পিরোজপুর জেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের চুংগাপাশা গ্রামে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে মহাপরিচালক এর নামে ৩৬ শতাংশ জায়গা রয়েছে যাহা দলিল নং ৭৩/৯৫ তারিখ ০৭-০১-১৯৯৫ইং। ১৯৯৫ সাল থেকে এই জায়গায় দক্ষিণ পূর্ব চুংগাপাশা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে চারজন শিক্ষক দিয়ে স্কুলের কার্যক্রম শুরু হয়।
    ২০০৭ সালে ভয়াবহ ঘুর্নিঝড় সিডরে এই স্কুলটি ভেংগে পরে। এর পরে দীর্ঘদিন স্কুলের কার্যক্রম বন্ধ থাকে। এই সুযোগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে মহাপরিচালক এর নামে থাকা জমির ১৮ শতাংশ জমি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে মহাপরিচালকের বিনা অনুমতিতে সম্পুর্ণ অবৈধ ভাবে দুই ব্যক্তি বিক্রয় করে।
    এভাবে সরকারি জমি অবৈধ ভাবে বেদখল হতে দেখে ২০১১ সালে স্থানীয় গণ্যমান্যরা আনুষ্ঠানিক ভাবে বৈঠক করে পুনরায় স্কুলের কার্যক্রম চালু করা সিদ্ধান্ত নেয়। এবং মোঃ শহিদুল ইসলামের দেয়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে মহাপরিচালক এর নামে দেয়া জায়গায় একটি পাকা ঘর উঠিয়ে পূর্বের স্কুলের সাথে নামের মিল রেখে দক্ষিণ পূর্ব চুংগাপাশা (ড,পি,সি) একাডেমী নামে পুনরায় স্কুলের কার্যক্রম চালু করে। স্কুলটি সুনামের সাথেই পড়াশোনা চলতে থাকে।
    স্কুলটি লেখাপড়ায় ভালো করায় স্থানিয় এমপি এ কে এম এ আউয়াল সাহেব স্কুলের সামনের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে মহাপরিচালক এর নামে থাকা খালি জায়গার মাঠ ভরাট করার জন্য ৫ টন গম বরাদ্দ দেন এবং সেই গমের টাকা দিয়ে এই স্কুলের সামনের মাঠ ভরাট করা হয়।
    প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পক্ষে পিরোজপুর জেলা শিক্ষা অফিসার বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করে ছাত্র-ছাত্রীদের সরকারী বই প্রদান করেন যার চালান নং ৪৪৬১৬২ । বিদ্যালয়টির ইএমআইএস কোড ৫০২০৩০৮২১-০৬। জেলা শিক্ষা অফিসার স্কুলটি পরিদশর্ন করে স্কুলটির ভূয়সী প্রশংসা করেন। বর্তমানে স্কুলটিতে প্রায় ২০০(দুইশত) শিক্ষার্থী রয়েছে।
    স্কুলটি ক্ষতিগ্রস্ত করার লক্ষ্যে একটি কুচক্রী মহল বারবার এই জায়গায় হামলা করেছে। এবিষয়ে পিরোজপুর সদর থানায় ইতি মথ্যে দুইটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। (১) ১৯০ তারিখ ০৫-০৭-২০১৪ ইং (২) ১৩৬ তারিখ ০৪-০১-২০১০ইং।
    প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে মহাপরিচালক এর নামে থাকা ৩৬ শতাংশ জায়গা (ডিপিসি) একাডেমী স্কুলের শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ হিসেবে ব্যবহার করা হতো। সেই জায়গায় ০৪/০১/২০১৯ ইং তারিখ গভীর রাতে কতিপয় কুচক্রী মহল ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে এলাকায় বোমা ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে আওয়ামীলীগের ৮নং ওয়ার্ডের কার্যালয় নাম দিয়ে দুটি ঘর উঠিয়ে তার কাটার বেড়া দিয়ে স্কুলের শিক্ষার্থীদের পড়াশুনায় বাধা দিতেছে।
    প্রসঙ্গে উল্লেখ্য, এই জায়গার উপরে পিরোজপুর জেলা মেজিট্রেটের আদালতে (“এম পি কেস নং ৭০/১৬”) একটি মামলাছিল ১৩/০৯/২০১৭ ইং তারিখে আদালত এই মামলার রায়ে স্ব স্ব অবস্থানে থেকে শান্তি বজায় রাখতে বলেন।কিন্তু এই কুচক্রী মহল আদালতের রায় অমান্য করে ০৪/০১/২০১৯ ইং তারিখ গভীর রাতে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে এলাকায় বোমা ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে আওয়ামীলীগের ৮নং ওয়ার্ডের কার্যালয় নাম দিয়ে দুটি ঘর উঠিয়েছে। স্কুলের সামনে যে আওয়ামীলীগের অফিস ঘর উঠিয়েছে তার ৪০০ গজ সামনেই বাজারে আওয়ামীলীগের অফিস রয়েছে।
    এবিষয়ে দক্ষিণ পূর্ব চুংগাপাশা (ডিপিসি) একাডেমীর ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাহাদাত হোসেন মৃধা ২০/০১/২০১৯ইং তারিখে প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। মন্ত্রী অভিযোগটি অমলে নিয়ে মোঃ মাহাবুবুর রশীদ সাক্ষরিত যার স্বারক নং-৩৮.০০.০০০০.০০৭.২৭.০০৩.১৯/৪০৯ তারিখ ২৭-০১-২০১৯ইং পত্রে পিরোজপুর জেলা প্রশাসকে বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহন করে মন্ত্রনালয়কে জানাতে বলেছেন। কিন্তু এই পত্র পাঠানোর ৪২ দিনেও জেলা প্রশাসন এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা বা পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি বলে স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

    Print Friendly, PDF & Email
    • 53
      Shares