Recent Comments

    ব্রেকিং নিউজ

    এমপি পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিট আবেদন সরাসরি খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট || ফকিরাপুলে ডাস্টবিন থেকে ‘মেইড ইন পাকিস্তান’ লেখা ৫৫ রাউন্ড গুলি ও একটি গ্রেনেড উদ্ধার || দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত ডাকসু নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম না কেনার সিদ্ধান্ত ছাত্রদলের || সংরক্ষিত নারী আসনের ৪৯ সংসদ সদস্যের প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন || ঠাকুরগাঁওয়ের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত : বিজিবি মহাপরিচালক ||  আগামী উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে না: রুহুল কবির রিজভী || ভারত ও বাংলাদেশের সম্পর্কক‘স্বামী-স্ত্রীর মতো’ :ররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন || বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এর অভিনন্দন বার্তা || বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এর বিবৃতি || হবিগঞ্জে বিএনপি নেতা জিকে গউছসহ ১৪ জন জেলে ||

    হত্যার পর লাশ গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা শৈলকুপার গাবলা গ্রামে যৌতুকের লোভে স্ত্রীকে হত্যা, শ্বাশুড়ি গ্রেফতার

    February 9, 2019

    জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ
    ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার গাবলা গ্রামে যৌতুকের লোভে সাথি খাতুন লিপা (২৩) নামে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর লাশ গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে সাথির স্বামী বরকত মন্ডল উজ্জল। এ ঘটনায় শৈলকুপা থানায় মঙ্গলবার রাতে ৪ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা রেকর্ড হয়েছে। পুলিশ অভিযোন চালিয়ে বৃহস্পতিবার এজাহার নামীয় আসামী হালিমা খাতুনকে গ্রেফতার করেছে। মামলার বাদী ও নিহতর মা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার তালতলা হরিপুর গ্রামের সিদ্দিক বিশ্বাসের স্ত্রী জায়েদা খাতুন এজাহারে উল্লেখ করেন, ৫ বছর আগে শৈলকুপা উপজেলার গাবলা গ্রামের মুনছুর মন্ডলের ছেলে বরকত মন্ডল উজ্জলের সাথে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মেয়েকে প্রায় সাড়ে তিন লাখ টাকার সংসারীক মালামাল দেওয়া হয়। সংসারিক জিনিসপত্র দেওয়ার পরও জামাই উজ্জল, তার মা হালিমা খাতুন, ভগ্নিপতি আরিফ ও বোন পলি খাতুন যৌতুকে জন্য সাথিকে বকাঝকা এমন কি মারপিট করতো। গত সোমবার আসামীরা ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য সাথি খাতুনকে বেদম মারপিট করে। বিকালে সাথি তার ব্যবহৃত মোবাইল থেকে এ খবর জানায়। এরপর থেকে সাথির ফোন বন্ধ হয়ে যায়। রাতেই আসামীরা সাথীকে হত্যার পর তার লাশ বাড়ির পাশে একটি কাঠাল গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার করে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরাথাল রিপোর্ট তৈরী করার সময় সাথির শরীরে অসংখ্য নির্যাতনের দাগ দেখতে পায়। এরপর থেকে আসামীরা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে শৈলকুপা থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল মতিন জানান, সাথিকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে। লাশের শরীরে অসংখ্য মারের ছাপ বা দাগ ছিল। তিনি বলেন, এজাহার নামীয় একজন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

    Print Friendly, PDF & Email