শুক্রবার বাদ জুমা কেন্দ্রীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটের সামনে থেকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি দৈনিক বাংলা-ফকিরাপুল-বিএনপি অফিস হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড় পর্যন্ত আসে।

এসময় ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদ, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু প্রমুখ বিক্ষোভ মিছিলে ছিলেন।

মিছিলটি বিএনপি অফিসের সামনে পৌঁছালে দলীয় কার্যালয়ের তৃতীয় তলা থেকে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী হাত নেড়ে স্বাগত জানান। মিছিল থেকে নেতাকর্মীরা ‘আমার নেত্রী আমার মা বন্দি হতে দেবো না’, ‘জেলের তালা ভাঙব, খালেদা জিয়াকে আনব’, ‘খালেদা জিয়া জেলে কেন, সরকার জবাব চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দেয়।

বায়তুল মোকাররমের মিছিলে বাধা না দিলেও নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে সমাবেশ শুরু করার পর পরই পুলিশ আচমকা একপাশে লাঠিপেটা শুরু করে বলে বিএনপির নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেন। এতে সমাবেশ ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়, নেতাকর্মীরা দৌড়ে যে যার মতো আশপাশের গলিতে ঢুকে পড়েন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শান্তিপূর্ণ মিছিলটি নাইটিঙ্গেল মোড়ে পৌঁছালে কিছু নেতাকর্মী আবাসিক এলাকায় প্রবেশের চেষ্টা করে। তখন পুলিশ ধাওয়া দিয়ে সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করেছে। এসময় নেতাদের অনেকেই সমাবেশস্থল ত্যাগ করেন, কেউ কেউ দলীয় কার্যালয়ের ভেতরে গিয়ে অবস্থান নেন। ঘটনাস্থলে থাকা কয়েকজন সাংবাদিক জানিয়েছেন, ধাওয়া দিয়ে পুলিশ এ সময় অনেককে ধরে নিয়ে গাড়িতে তুলে ফেলে।

এ ব্যাপারে মতিঝিল জোনের এডিসি শিবলি নোমান সাংবাদিকদের জানান, বিএনপি নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণ মিছিল করছিল। কিন্তু কিছু নেতাকর্মী আবাসিক এলাকায় প্রবেশের চেষ্টা করলে তাদেরকে ধাওয়া দেয়া হয়। তবে কাউকে আটক করা হয়েছে কিনা তা খোঁজ নিয়ে পরে জানাতে পারব।

এছাড়াও বাদ জুমা দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ চলছে। এতে বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ধরপাকড় ও সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায়ের প্রতিবাদে ওইদিন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আজ বাদ জুমা দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
খালেদা জিয়ার রায়ের প্রতিবাদে সিলেটে বিএনপির বিক্ষোভ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের রায়ের প্রতিবাদে সিলেটে বিএনপির বিক্ষোভ।

শুক্রবার দরগাহ হযরত শাহজালাল (র.) এর মাজার মসজিদ থেকে নামাজ শেষে শত শত নেতাকর্মী নিয়ে বিক্ষোভ করে বিএনপি। দরগাহ থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে নগরীর চৌহাট্রা পয়েন্ট এসে সংক্ষিপ্ত পথ সমাবেশ করা হয়।

পথ সভা শেষ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে চলে যায় বিএনপির নেতাকর্মীরা। তবে চৌহাট্রা পয়েন্ট পুলিশের অবস্থান থাকলেও কোন ধরের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ ক্ষুদ্র ঋণ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফি আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা বিএনপি সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম এবং জেলা সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, নাসিম হোসাইন, বদরুজ্জামান সেলিম, কয়েস লোদী, সালেহ আহমদ খসরু, মামুনুর রশিদ মামুন, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, সৈয়দ মীন উদ্দিন সোহেল, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মাহাবুবুল হক চৌধুরীসহ বিএনপির শত শত নেতাকর্মী।
নারায়ণগঞ্জে বিএনপি’র বিক্ষোভে পুলিশের লাঠিচার্জ, আটক ৪

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে পূর্বঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নারায়ণগঞ্জে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের বিক্ষোভ মিছিলে লাঠিচার্জ ও কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার বাদ জুমা নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের একটি বিক্ষোভ মিছিলে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এ সময় সেখান থেকে ৪ জনকে আটক করা হয়।

অন্যদিকে, আড়াইহাজারে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এ ঘটনায় আহত হন অনন্ত ১০ জন।

রাজশাহীতে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধা

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ অন্যদের কারাদণ্ডের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করছে রাজশাহী মহানগর বিএনপি।

শুক্রবার দুপুরে নগরীর মালোপাড়া দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন বিএনপি নেতারা। এতে পুলিশ বাধা দেয়। এর আগে, সকাল থেকেই পুলিশ ভুবনমোহন পার্কের চারপাশ ঘিরে রাখে। পরে পুলিশ বেষ্টনীর মধ্যেই সমাবেশ করে বিএনপি।

এতে বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, নগর বিএনপি সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন।

এর আগে সকালে একই স্থান থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা ও মহানগর যুবদল। তবে পুলিশি বাধায় সেটিও বের হতে পারেনি। পরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করেছে যুবদল।

বরিশালে কড়া পুলিশ বেষ্টনীতে বিএনপির বিক্ষোভ, যুবদলের মিছিলে বাধা

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা দেওয়ার প্রতিবাদে বরিশালে কঠোর পুলিশি বেষ্টনীতে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বরিশাল উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপি এবং সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর সদর রোডের দলীয় কার্যালয় চত্বরে এই বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়।

দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি এবায়েদুল হক চানের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দলের বিভাগীয় সাংগনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি বিলকিস জাহান শিরিন, উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি মেজবাহউদ্দিন ফরহাদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশ শেষে দক্ষিণ জেলা যুবদল একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে তাদের বাধা দেয় পুলিশ। একই দাবিতে বিকেলে বিক্ষোভ সমাবেশের আওয়াজন করেছে মহানগর বিএনপি।

খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে নরসিংদীতে বিক্ষোভ

বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় সাজা দেয়ার প্রতিবাদে নরসিংদীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রতিবাদ সভায় যোগ দেয়।

জেলা বিএনপির উদ্যেগে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সভাপতি ও বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাষ্টার, সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর এলাহী, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক নূরুল ইসলাম, যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক ইলিডন, শাহেন-শাহ-শানু,ছাত্রদল সভাপতি আব্দুর রউফ ফকির রনি, চিনিশপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আওলাদ হোসেন মোল্লাসহ বিএনপি ও অঙ্গসংঘঠনের নেতীবৃন্দ।

বগুড়ায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারমান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে বগুড়া জেলা বিএনপি। কর্মসূচি শুরুর আগে পুলিশের লাঠিচার্জে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শুক্রবার সকালে দলীয় কার্যালয় কাঁটাতারের বেড়া আর আইন শৃংখলাবাহিনীর দ্বারা অবরুদ্ধ অবস্থার মধ্যে বিএনপির নেতাকর্মী শহরের নবাববাড়ী রোডে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেন। আইন শৃংখলাবাহিনীর তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে কর্মসূচিতে যোগ দিতে সকাল থেকে নেতাকর্মীরা শহরের নবাববাড়ী রোডের জেলা কার্যালয়ে আসতে থাকেন।

কার্যালয়ের পশ্চিম পাশের ফতেহ আলী মাজারের সামনে এবং দক্ষিণে সদর পুলিশ ফাঁড়ির সামনে নবাববাড়ীর গেটে কাঁটাতারের বেরিকেড দেয়া হয়। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ফতেহ আলী মাজারের সামনের বেরিকেড ভেদ করে বেশকিছু নেতাকর্মী ভিতরে ঢুকতে চাইলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এসময় তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এতে কমপক্ষে ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয় বলে দলীয় সূত্রে দাবি করা হয়েছে।

দুপুর ১২টায় দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বগুড়া জেলা সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি পুলিশ ফাঁড়ির সামনে কাঁটাতারের বেরিকেডে বাধা পেয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম। বক্তব্য দেন চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, জেলা সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, কেন্দ্রীয় সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মাদ শোকরানা, আলী আজগর হেনা, লাভলী রহমান, অধ্যাপক ডাক্তার মওদুদ হোসেন আলমগীর পাভেল, রেজাউল করিম বাদশা, সাবেক এমপি নূর আফরোজ বেগম জ্যোতি, মীর শাহে আলম, পরিমল চন্দ্র দাস, তৌহিদুল আলম মামুন, আব্দুল ওয়াদুদ, আবুল বাশার, মাজেদুর রহমান জুয়েল, আলীমুর রাজি তরুন, মাহমুদ শরীফ মিঠু , শামছুল হক রোমান, মোশারফ হোসেন স্বপন প্রমুখ।

ময়মনসিংহে মিছিল থেকে জেলা বিএনপির সম্পাদকসহ আটক ৮

কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ময়মনসিংহে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল থেকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ ৮ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর শহরের নতুন বাজার এলাকায় বিক্ষোভ শুরু করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপি’র সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি শামীম আজাদ, দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজি রানা, প্রচার সম্পাদক কায়কোবাদ মামুনসহ প্রমুখ।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দের নেতৃত্বে কয়েক গজ সামনে এগোলে পুলিশ মিছিলটি ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এসময় মিছিল থেকে আটক করা হয় জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দসহ ৮ নেতাকর্মীকে। পরে তাদেরকে কোতোয়ালী মডেল থানা হাজতে নেয়া হয়।

দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি শামীম আজাদ অভিযোগ করে বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ এবং ৫ থেকে ৬ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এসময় আমাদের চারজন কর্মী আহত হয়েছেন।’

কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার রাতভর পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিএনপি-জামায়াতের ৩৪ নেতাকর্মী আটক হয়েছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল-আমিন। তিনি আরও জানান, আটককৃতদের মধ্যে ২২ জন জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মী রয়েছে।

টাঙ্গাইলে বাধার মুখেও বিএনপির কর্মসূচি পালিত

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারমান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে টাঙ্গাইল জেলা বিএনপি। বিক্ষোভ মিছিল পুলিশি বাধায় পণ্ড হয়ে গেছে।

শুক্রবার সকালে টাঙ্গাইল শহরের ভিক্টোরিয়া রোডস্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনের সড়কে জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা সমবেত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। পরে সেখানেই এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে তাদের বিক্ষোভ কর্মসূচি শেষ করেন তারা।

এ সময় কয়েকশ’ নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে সমাবেশে বক্তব্য রাখন জেলা বিএনপির সভাপতি কৃষিবিদ শামছুল আলম তোফা ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ফরহাদ ইকবাল।

দিনাজপুরে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধা, আটক ১০
বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারমান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে দিনাজপুর জেলা বিএনপি।

শুক্রবার দুপুরে জুম্মার নামাজের পরে জেলা বিএনপি’র কার্যালয়ের সামনে বিএনপি মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। এসময় বিএনপির আহবায়ক কমিটি’র সদস্য মঞ্জুর মুর্শেদ সুমনসহ তিনজনকে আটক করে পুলিশ।

অপরদিকে বিরল উপজেলায় বিএনপির মিছিলের প্রস্তুতিকালে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. রফিকুল ইসলামসহ ৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

কোতয়ালী থানার ওসি রেদোয়ানুর রহিম জানান, জুমার নামাজের পর জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি’র সদস্য মঞ্জুর মুর্শেদ সুমন, শ্রমিক দল নেতা মিজানুর রহমান মিজান ও ছাত্রদল নেতা সাঈদকে আটক করা হয়েছে।

এছাড়াও বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত দিনাজপুর জেলায় বিএনপি’র দুই নেতাকর্মীসহ আরো ২৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লালমনিরহাটে বিএনপির বিক্ষোভ

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারমান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে লালমনিরহাট জেলা বিএনপি।

বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবিব দুলুর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করেছে সদর উপজেলা বিএনপি।

শুক্রবার বিকেলে সদরের বড়বাড়ি ইউনিয়ন বিএনপি কার্যালয় থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে কলেজ মাঠে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করে।

সমাবেশে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান বাবলা, মমিনুল হক, আফজাল হোসেন, আব্দুল হালিম, সাজু পাটোয়ারী, মহিউদ্দিন লিমন, ভিপি আনিছ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

ভাঙ্গায় বিএনপির বিক্ষোভ

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে ভাঙ্গা উপজেলা বিএনপি।

কেন্দ্রিয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সহ সভাপতি, ভাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার ইকবাল হোসেন সেলিমের নেতৃত্বে শুক্রবার দুপুরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিএনপির অফিসে গিয়ে শেষ হয়। মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত এক সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার ইকবাল হোসেন সেলিম, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুন্সী হাবিবুর রহমান।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক ফজলে সোবাহান শামীম, পৌর সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক তরিকুল ইসলাম আরিফ মুন্সী, যুগ্ন সম্পাদক সিকদার নুরুজ্জামান বিল্লাল, যুগ্ন সম্পাদক কে এম আলমগীর হোসেন, পৌর যুগ্ন সম্পাদক কামরুল হাসান, সহসাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হাসান, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মিরন ব্যাপারী, রামিম মুন্সী।

কুমিল্লায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে কুমিল্লা বিএনপি।

শুক্রবার দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিন উর রশিদ ইয়াছিনের গ্রুপ রাণীর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিলে দক্ষিণ জেলা বিএনপি নেতা সফিউল আলম রায়হান, রেজাউল কাইয়ুম, যুবদল নেতা উৎবাতুল বারী আবু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, নওয়াব বাড়ি রোডে বিক্ষোভ মিছিল করে দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর গ্রুপ। এই মিছিলে বিএনপি নেতা সৈয়দ জাহাঙ্গীর, আবদুস সালাম মাসুক, মোজাহিদ চৌধুরী,যুবদল নেতা ইউসুফ মোল্লা টিপু, ছাত্রদল নেতা সাজ্জাদুল কবীর সাজ্জাদ ও ফারুক আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মোস্তাক মিয়া বলেন, খালেদা জিয়ার কারাদণ্ডের প্রতিবাদে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ও মহানগর বিএনপি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ১০ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান কুমিল্লা জেলা পুলিশের ডিআইও ওয়ান মাহাবুব মোর্শেদ।

মুন্সীগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রায়ের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী ডাকা বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে মুন্সীগঞ্জ জেলা বিএনপি বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর জেলা সদরের মুক্তারপুর এলাকায় সদর থানা বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে মুক্তারপুরস্থ বিএনপি কার্যালয়ে এ বিক্ষোভ সমাবেশ হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন, সদর বিএনপির সভাপতি মো: মহিউদ্দিন। অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান খান, সদর থানা বিএনপির সাবেক আইন সম্পাদক এ্যড, মো; হালিম হোসেন, জেলা শ্রমিক দলের সাধারন সম্পাদক আব্দুল আজিম স্বপন, জেলা ছাত্রদলের আমিরুল ইসলাম জসিম, ছাত্রদল নেতা শফিকুল হাসান তুষার, সোহাগ প্রমুখ।

অপরদিকে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীরা শ্রীনগর সরকারী কলেজ গেট এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন মুকুল, দপ্তর সম্পাদক ছিদ্দিকুর রহমান মিলন, যুগ্ম সম্পাদক কাজী শামিম ইমাম সাচ্চু, উপজেলা যুবদলের সভাপতি জয়নাল আবেদীন মৃধা জেমস, ক্রীড়া সম্পাদক আলীনুর হোসেন চঞ্চল, আহসানুল হক, আবুল মৃধা, শহিদুল ইসলাম, সফিকুল ইসলাম, ছাত্রনেতা মাহবুবুর রহমান মিন্টু, ফারুক মৃধা, জামিল হোসেন বিপ্লব, লিমন, এমদাদুল হক রজিন, খাদিমুল ইসলাম অপু, ফয়সাল আহমেদ, হাসিব, নুরু, হৃদয় প্রমুখ।