Recent Comments

    ব্রেকিং নিউজ

    বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় জাতি স্মরণ করেছে মহান ভাষা শহীদদের || জিয়া পরিবারকে নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রকাশে তৎপর এক শ্রেণীর হলুদ পত্রিকা ও সাংবাদিকেরা : রুহুল কবির রিজভী || চাঁদপুরে বিএনপির দুই শীর্ষ নেতাসহ আটক ৭ || রাজনৈতিক অধিকার অর্জনের মধ্যদিয়েই আমরা অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জন করতে পারি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা || একটি গণতন্ত্রহীন দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভাষা, নির্দয় একনায়কতন্ত্রের ভাষা:রুহুল কবির রিজভী || খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা ও রায় সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত:সৌদিআরব বিএনপির সভাপতি আহমদ আলী মুকিব || অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন : লুই মার্সেল || সাহস থাকলে নিরপেক্ষ-নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন:হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে নজরুল ইসলাম খান || বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এর নিন্দা ও প্রতিবাদ || বিভিন্ন অসঙ্গতি তুলে ধরে খালেদা জিয়ার রায়ের বিরুদ্ধে ২৫ যুক্তিতে আপিল করেছেন আইনজীবীরা ||

    তদন্ত না করেই মামলা নিয়ে ধু¤্রজাল :ধর্ষীতাকে উদ্ধার করায় দুই যুবক জেল-হাজতে

    February 13, 2018

     

    নজরুল ইসলাম মানিক, সাভার ও আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি : –
    আশুলিয়ায় গণধর্ষণের পর সড়কের উপর ফেলে যাওয়া এক কিশোরী পোশাক শ্রমিককে উদ্ধারের পর হাসপাতালে ভর্তি করে পুরুস্কারের স্থলে মিললো তিরস্কার স্থানীয় কয়েক যুবকের । এ ঘটনায় কথিত প্রেমিক ও ধর্ষণকারী রাসেলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেও তারা। এ ঘটনার প্রায় এক মাস পর আশুলিয়া থানা পুলিশ ওই দুই যুবককে থানায় ডেকে আটক করে। পরে রবিবার দুপুরে আদালতে পাঠায়। হতভাগা দুই যুবকের নাম ইমরান (২৬) ও সোহাগ (১৭)। তারা জামগড়া এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থেকে স্থানীয় পোশাক কারখানায় কাজ করেন।
    মামলার বাদী ও ধর্ষীতা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বখাটে রাসেল ও তার বন্ধুরা মেয়েটিকে কৌশলে ডেকে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এর পর তাকে অচেতন অবেস্থায় স্থানীয় একটি সড়কে ফেলে রেখে যায় নরপিচাষ যুবকরা । পরে স্থানীয় ইমরান ও সোহাগসহ কয়েকজন যুবক ওই পথ দিয়ে যাওয়ার সময় ধর্ষীতাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ধর্ষীতা নারী পোশাক শ্রমিক আক্ষেপের সাথে আরো বলেন, প্রতিবেশী ইমরান ও সোহাগসহ কয়েকজন যুবক তাকে উদ্ধার না করে হাসপাতালে ভর্তি করলে হয়তো তাকে অচেতন অবস্থায় সেখানেই মৃত্যু বরন করতে হতো। তার পরিবার তার সন্ধান পেতো কিনা সে নিয়েও তিনি সন্দেহ পোষন করেন। তবে ওই যুবককে আটক করার পর তিনি ও তার মা থানায় এসে বিষয়টি আশুলিয়া থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি অপারেশন) ওবায়দুর রহমানকে বললেও তাদেরকে ছাড়েনি পুলিশ। তবে কথিত প্রেমিক ও ধর্ষককে আটকের পর পুলিশের সোপর্দ করে দেওয়ার কারনে ওই বখাটে ১৬৪ ধারা জবানবন্দিতে তাদেরকে ফাসিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ধর্ষীতার পরিবার।
    এ বিষয়ে জানার জন্য আশুলিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক ( ইন্টিলিজেন্স)) ওবায়দুর রহমান ক্ষীপ্ত হয়ে বলেন কি জানতে চান সেই সাথে ক্ষমতার দাপটে বলেন আপনাদেরকে কি বলবো আপনিকি আমার অফিসার এই বলেই মুঠোফেনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।
    এদিকে আটক হওয়া যুবক ইমরানের মা লাল বানু ও সোহাগের মা রেখা বেগম অভিযোগ করে বলেন, তাদের ছেলেরা নির্দোষ। ধর্ষনের পর ওই কিশোরীকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে ইমরান ও সোহাগ কিশোরীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। দুই যুবকের পরিবার অভিযোগ করে আরো বলেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত না করেই তাদের সন্তানদের বিনা অপরাধে থানায় আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। এছাড়াও ধর্ষনের ঘটনার সাথে জড়িত থাকলে ওই দুই যুবক পালিয়ে বেড়াতো। অথচ পুলিশ তাদেরকে ডেকে এনে থানায় আটক করে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। এব্যাপারে ঢাকা জেলাার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইদুর রহমান বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

    উল্লেখ্য, আশুলিয়ায় নর্থ হেয়ার বিডি কোম্পানী লিঃ কারখানার কর্মীকে কৌশলে তার কথিত প্রেমিক রাসেল মিয়া গত ১২ জানুয়ারী শুক্রবার বিকেল জিরানী এলাকায় নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে গণধর্ষন করে সড়কের উপর ফেলে রেখে যায়। পরে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের জিরানী এলাকায় অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে স্থানীয় কয়েক যুবক থানা পুলিশে খবর দেয়। পরে নারী শ্রমিকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ ধর্ষক প্রেমিক রাসেলকে আটক করেন। এ ঘটনার পরের দিন ধর্ষীতার মা বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

    Print Friendly, PDF & Email